দেওয়ানগঞ্জে দ্রুত এগিয়ে চলছে গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাকা ঘরের নির্মাণ কাজ

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার পাকা ঘরের নির্মাণ কাজ। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির মাধ্যমে দ্রুত কাজ এগিয়ে চলছে এসব কাজ । উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে সভাপতি পি আই ও সদস্য সচিব এবং সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দের কে নিয়ে এই কমিটি গঠন করা হয়েছে । গৃহহীনদের জন্য নির্মিত এসব ঘরের নির্মাণকাজের যাবতীয় দেখভাল এই কমিটির মাধ্যমে পরিচালিত হচ্ছে।

উপজেলা প্রশাসন এবং সহকারী কমিশনার ভূমির কার্যালয় পি আই ও অফিস কর্মব্যস্ত সময় পার করছে। দেওয়ানগঞ্জ সহকারী কমিশনার ভূমি আসাদুজ্জামান অনেক রাত অবধি অফিসে থেকে এসব কাজের অগ্রগতি নিজে পর্যবেক্ষণ করছেন। প্রতিদিন বিভিন্ন ইউনিয়নে নির্মিত এসব ঘরের কাজের তদারকি করছেন ইউ এন ও এসিল্যান্ড। চেয়ারম্যানদের সাথে থেকে কাজের মান অগ্রগতি পর্যালচনা করছেন পি আই ও এনামুল হাসান।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে এই উপজলায় মোট ১৭২ টি ঘর নির্মাণ করা হবে এর ভেতর দেওয়ানগঞ্জ সদর ইউনিয়নে ১১ টি চুকাইবাড়ি ১৭ টি চিকাজানি ৩২ টি, বাহাদুরাবাদে ১৩ টি, হাতিভাংগায় ৪ টি পাররামরামপুরে ২১ টি ডাংধরায় ৭৪ টি। দুই কক্ষ বিশিষ্ট প্রতিটি ঘর নির্মাণে ব্যায় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এনামুল হাসান জানান , এসব ঘর নির্মানের কাজ অনেক দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে আমরা আমাদের সাধ্যমত চেষ্টা করে যাচ্ছি কাজের গুনগত মান ভালো রাখতে । ইউ এন ও স্যার সাথে থেকে সবকিছু মনিটিং করছেন যদি কোথাও কোন অভিযোগ উঠে আমরা সরেজমিনে সেখানে গিয়ে তার বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নিচ্ছি।

সহকারি কমিশনার ভূমি মো: আসাদুজ্জামান জানান মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছা এবং স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে আমরা আমাদের সাধ্যমত শ্রম দিয়ে যাচ্ছি কোথাও কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন উঠলে আমরা সেখানে গিয়ে ব্যাবস্থা নিচ্ছি। প্রতিদিনই কোন না কোন ইউনিয়নে গিয়ে কাজের তদারকি করছি। আশাকরি এ মাসের ১৫ তারিখের মধ্যেই ঘরের কাজ সম্পন্ন হলে আমরা ঘর হস্তান্তর করতে সক্ষম হব। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম আবদুল্লাহ বিন রশিদ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই প্রকল্পের কাজকে আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছি। ভালোভাবেই কাজ এগিয়ে যাচ্ছে, অনেক ঘরের কাজ ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়ে গেছে। আশাকরি খুব অল্প সময়ের ভেতর বাকি কাজ সম্পন্ন হলে, আমরা গৃহহীনদের মাঝে এসব ঘর হস্তান্তর করতে সক্ষম হব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *