হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে জামালপুর সনাক-টিআইবি’র অনলাইন মতবিনিময় সভা

২৬ জানুয়ারি সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), জামালপুর এর আয়োজনে “স্বাস্থ্য সেবার সার্বিক চিত্র, প্রতিবন্ধকতা ও করণীয়: প্রেক্ষিত জামালপুর” শীর্ষক এক অনলাইন সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনলাইন মিটিং অ্যাপ গুগল মিট এর মাধ্যমে আয়োজিত উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করে জামালপুর সনাক সভাপতি অজয় কুমার পাল।

সভায় প্রধাণ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের সহকারি পরিচালক ডা. মো: মাহফুজুর রহমান সোহান। সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. উত্তম কুমার সরকার, টিআইবি ময়মনসিংহ ক্লাস্টারের প্রোগ্রাম ম্যানেজার চিত্ত রঞ্জন রায়, সনাক সহ-সভাপতি অধ্যাপক কায়েদ-উয-জামান এবং সনাক জামালপুরের স্বাস্থ্য বিষয়ক উপকমিটির সদস্যবৃন্দ ও ইয়েস ফ্রেন্ডস সদস্যবৃন্দ।

সভায় শুরুতে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন জামালপুর সনাকের স্বাস্থ্য বিষয়ক উপকমিটির আহ্বায়ক এবং সনাক সহ-সভাপতি শামীমা খান। এরিয়া ম্যানেজার মো: আরিফ হোসেন-এর সঞ্চালনায় এ সময় স্বাস্থ্য সেবার সার্বিক চিত্র, প্রতিবন্ধকতা ও করণীয় বিষয়ে সনাক কর্তৃক পূর্বের প্রস্তাবিত বিষয়গুলোর অগ্রগতি এবং সনাক জামালপুরের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের বিবেচনার জন্য আট দফা প্রস্তাবনা পেশ করা হয়।

প্রস্তাবনা সমূহ হলো: ডিউটি রোস্টার অনুযায়ী ডাক্তারদের দুপুর ২.৩০ পর্যন্ত উপস্থিতি নিশ্চিত করা; ব্রেস্ট ফিডিং কর্ণারের দরজা সংস্কার করা; জরুরী বিভাগের সামনে গাড়ির জটলা অপসারনে উদ্যোগ গ্রহণ করা, কোভিড আক্রান্ত রোগীর তথ্যাদি তথ্যবোর্ডে নিয়মিত হালনাগাদ রাখা; অক্সিজেন সরবরাহ নিশ্চিতে অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংখ্যা বৃদ্ধি করা; সবাইকে মাস্ক পড়ে হাসপাতালে প্রবেশ করতে বাধ্য করা-এ জন্য গেটে অতিরিক্ত লোক লাগলে নিয়োগের ব্যবস্থা করা; অভিযোগ নিষ্পত্তি বিষয়ক কমিটি গঠন ও তা কার্যকর করা; সার্বিক নিরাপত্তার জন্য হাসপাতাল প্রাঙ্গনে স্থায়ীভাবে পুলিশ চৌকি স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করা।

২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের সহকারি পরিচালক ডা. মো: মাহফুজুর রহমান সোহান বলেন, সীমিত জনবল নিয়ে জেনারেল হাসপাতালের কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এ সময় তিনি সনাকের উত্থাপিত প্রস্তাবনাসমূহের বিষয়ে আলোকপাত করে বলেন বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা থাকলেও হাসপাতালের সেবার মান বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। লোকবল সংকট থাকলেও তা সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে। বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও হাসাপাতালের বর্ধিতকরণের জন্য কার্যক্রম চলমান রয়েছে, অভিযোগ নিষ্পত্তি বিষয়ক কমিটি গঠনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। সনাকের সহযোগিতায় ও পরামর্শে হাসপাতালের সেবার মান আরো বৃদ্ধি পাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *