আইবিএম নিয়ে এল বিশ্বের প্রথম স্ট্যান্ড এলোন কোয়ান্টাম কম্পিউটার

বিশ্বের প্রথম কোয়ান্টাম কম্পিউটার, যার নাম IBM Q Szstem OneTM এবং এটি ডিজাইন করা হয়েছে বৈজ্ঞানিক ও বানিজ্যিক উদ্দেশ্যে। এই সম্মেলনে একই সাথে আইবিএম ভবিষ্যতে বানিজ্যিক সহায়তার জন্য তাদের প্রথম IBM Q Quantum Computation Center তৈরির পরিকল্পনার কথাও জানিয়েছে, যা তৈরি হবে নিউইয়র্কের পুকিপ্সি তে।
বিগত বছর গুলোতে কোয়ান্টাম কম্পিউটার গুলো শুধুমাত্র ল্যাবের অভ্যন্তরে গবেষণার কাজেই ব্যবহৃত হয়ে আসছিল। IBM Q Szstem OneTM তৈরির মাধ্যমে আইবিএম এবার তা বানিজ্যিকিকরণে এগিয়ে গেল। যদিও এজন্য আইবিএম কে বেশ কিছু প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন একটি কোয়ান্টাম কম্পিউটারে বানিজ্যিক কাজের জন্য যা দরকার হবে, IBM Q Szstem OneTM এর ২০ কোয়াবিটস তার তুলনায় অনেকটাই বেশি। যদিও টেক অনুরাগীদের আগ্রহের শেষ নেই।
।BM Q Szstem OneTM টি একটি ৯ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৯ ফুট প্রস্থ বিশিষ্ট কাঁচের ঘরে সম্পূর্ণ বাতাস বিহীন পরিবেশে রাখা হয়েছে। এই বিশাল যন্ত্রটি পরিচালনা করতে এই কাঁচ ঘেরা কামরাটির রয়েছে বিশেষ গুরুত্ব। কোয়ান্টাম কম্পিউটার চালাতে প্রয়োজন হয় নিম্ন তাপমাত্রা যা এই কামরায় বিশেষ ভাবে নিয়ন্ত্রিত হয়। ঠিক এই কারণেই এখন পর্যন্ত বাসা বাড়ি বা অফিসে এখনো এই কম্পিউটার ব্যবহার করা যায় নি। তবুও টেক বিশ্ব আশাবাদি এই IBM Q Szstem OneTM তৈরির মাধ্যমে কোয়ান্টাম কম্পিউটার বানিজ্যিক ভাবে ব্যবহারের দিকে এক ধাপ এগিয়ে গেল প্রযুক্তি।
সাধারণ কম্পিউটার সাধারণত বাইনারি সিস্টেম ব্যবহার করে চলে। কিন্তু এই কোয়ান্টাম কম্পিউটার সাধারণ কম্পিউটার থেকে বেশ কিছুটা ভিন্ন। এই কম্পিউটারে ব্যবহৃত হয় কিউবিটস (qubits) যার ফলে সিস্টেম ০ এবং ১ কে একইসাথে মেমরিতে স্টোর করা যায়। একটি টিপিক্যাল কোয়ান্টাম কম্পিউটার মোটামুটি ৫০ কিউবিট হলেই খুব দারুণ ভাবে চলতে পারে। 
বানিজ্যিক ভাবে কোয়ান্টাম কম্পিউটার এর ব্যবহার কেবল মাত্র শিশু পর্যায়ে রয়েছে। এর আসল লাভ পেতে আমাদের আরো কিছুটা সময় লাগবে। এই কম্পিউটার গুলো প্রচুর পরিমান ডাটা প্রসেসের জন্য বিখ্যাত। বিভিন্ন ক্ষেত্রে এর ব্যবহার খুবই প্রয়োজনীয়। যেমন, মহাকাশে বা মিলিটারি বিভাগে কোয়ান্টাম কম্পিউটারের অবদান অনস্বীকার্য। 
অবশ্য শুধু আইবিএম নয়, গুগল এর মত টেক জায়ান্টও পিছিয়ে নেই কোয়ান্টাম দুনিয়ায় তাদের পা ফেলতে। গুগল কোয়ান্টাম কম্পিউটারকে আরো সহজ আরো ব্যবহার যোগ্য করে তুলতে কাজ করে যাচ্ছে। শোনা যাচ্ছে মাইক্রোসফটও এমন কোয়ান্টাম কম্পিউটার তৈরি করতে চাচ্ছে যা সাধারণ প্রসেসরের সাথে মিলিয়ে আরো সহজে ব্যবহার যোগ্য করে তোলা যাবে।

Source: ullashtv.com, Feature Image: onlinebooksreview.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 − five =