আঞ্চলিক মহাসড়কে উন্নীত হচ্ছে শেরপুর-ময়মনসিংহ সড়ক

সড়ক ও জনপথ বিভাগের তথ্যমতে,  শেরপুর-ময়মনসিংহ ভায়া ফুলপুর-নকলা আঞ্চলিক মহাসড়কটি ফোরলেনের কাছাকাছি প্রায় ৩৬ ফুট প্রশস্ত করা হবে। এরমধ্যে শেরপুর সড়ক বিভাগের আওতায় ৩০.৪০ কি.মি. ও ময়মনসিংহ সড়ক বিভাগের আওতায় ৩৭.৮৬ কি.মি. সড়কসহ মোট ৬৮.২৬ কি.মি. সড়ক রয়েছে। প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ৮৫৫ কোটি ৪৮ লাখ টাকা।

গত ১৭ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী ও জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির(একনেক) সভাপতি শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেকের এক সভায় ময়মনসিংহ (রঘুরামপুর)- ফুলপুর-নকলা-শেরপুর আঞ্চলিক মহাসড়ক (আর-৩৭১) নামে বৃহৎ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

শেরপুর-ময়মনসিংহ ভায়া নকলা-ফুলপুর আঞ্চলিক মহাসড়কটি প্রশস্তকরণের মাধ্যমে প্রায় ৩৬ ফুটে উন্নীত হচ্ছে। এর মধ্যদিয়ে একদিকে যেমন প্রান্তিক ও সীমান্তবর্তী জেলা শেরপুরবাসীর দীর্ঘদিনের প্রতীক্ষা ও দুর্ভোগের অবসান ঘটবে, আরেকদিকে এ জেলার অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক ও সামষ্টিক উন্নতির দ্বার আরো প্রশস্ত হবে। রাজধানী ও বিভাগীয় শহর ময়মনসিংহের সঙ্গে শেরপুরের লাখ লাখ জনগোষ্ঠীর চলাচল সহজতর ও গতিময় হওয়ার পাশাপাশি দূর-দূরান্তের পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয় ও দর্শনীয় স্থান গারো পাহাড়ের পাদদেশে পর্যটন সুবিধার আরো বিকাশ ঘটবে। এ ছাড়াও ঢাকা থেকে সবচেয়ে কম ২শ’ কিলোমিটার দূরত্বের ভারতীয় সীমান্তে ইমিগ্রেশনসহ নাকুগাঁও স্থলবন্দরের সঙ্গে যোগাযোগের ক্ষেত্রে সেতুবন্ধনও সুদৃঢ় হবে। আর প্রান্তিক-সীমান্তবর্তী কৃষি ও খাদ্যসমৃদ্ধ জেলা শেরপুরের পাশাপাশি জামালপুরের বকশীগঞ্জ, কামালপুর এবং রাজীবপুর-রৌমারী-কুড়িগ্রামসহ উত্তরাঞ্চলের কিছু অংশের মানুষেরও সড়কপথে যাতায়াতের ব্যবস্থার উন্নয়ন ঘটবে।

তথ্যসূত্র: মানবজমিন ও বিডি ২৪ লাইভ, ফিচার ইমেজ:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *