কলেজছাত্রীর আত্মস্বীকৃত খুনির ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন

মোঃ মাহফুজুল হক (তুষার)

জামালপুরের সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজের স্নাতক (ডিগ্রী) তৃতীয় বর্ষের মানবিক শাখার ছাত্রী শামছুন্নাহারের আত্মস্বীকৃত খুনি জামিলের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা।

বুধবার (০৪ ঠা মার্চ) বেলা ১২টায় কলেজ ক্যাম্পাসে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মাববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মুজাহিদ বিল্লাহ ফারুকী, উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মো. হারুন অর রশিদ, শিক্ষক সংসদের সম্পাদক ও বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আব্দুল হাই আলহাদী, সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজ শাখা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক খাবীরুল ইসলাম খান বাবু, যুগ্ম আহ্বায়ক তারিফ হোসেন বাবু প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা কলেজ ছাত্রীর নৃশংস বর্বরোচিত হত্যাকান্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান৷ এবং নিহত শামসুননাহারের ঘাতক স্বামী আত্মস্বীকৃত খুনি জামিল মিয়ার ফাঁসির দাবি জানান। কলেজের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীরা এ মানববন্ধনে অংশ নেন।

উল্লেখ্য, গত ২ মার্চ রাতে ঢাকার আশুলিয়ায় ভাড়া বাসায় স্বামী জামিল মিয়ার হাতে খুন হন কলেজ ছাত্রী শামছুন্নাহার। ঘটনার রাতেই ঘাতক জামিল মিয়া নিজেই আশুলিয়া থানায় গিয়ে স্ত্রীকে হত্যার দায় স্বীকার করেন। পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে এবং জামিল মিয়াকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

নিহত ছাত্রী শামছুন্নাহার জামালপুর জেলার মেলান্দহ উপজেলার চরপলিশা গ্রামের মো. আব্দুস ছালামের মেয়ে। দু বছর আগে একই উপজেলার বাঘাডোবা গ্রামের মো. শাহ জাহানের ছেলে জামিল মিয়ার (৩০) সাথে বিয়ে হয় তার। মৃত্যুকালে শামসুন্নাহার ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিল৷ বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ দেখা দেয়।যার জের ধরেই শামছুন্নাহারকে হত্যা করা হয়েছে বলে মনে করেন স্বজনরা৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *