বকশীগঞ্জে প্রেমিকাকে ফেলে পালিয়েছে প্রেমিক ॥ বিয়ের দাবিতে অনশন

মোবাইল ফোনে প্রেম,অতপর বিয়ের প্রলোভনে কৌশলে ডেকে এনে ৪ মাস যাবত ঘরে আটকে রেখে এক কিশোরীকে ধর্ষন করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনা ফাসঁ হওয়ায় ওই কিশোরীকে ফেলে পালিয়েছে জিয়া নামে প্রতারক প্রেমিক। এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে গত ৫ দিন ধরে অবস্থান করছে ওই কিশোরী ও তার পরিবার।
তবে এলাকার একটি সুবিধাবাদী মহল বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছে কিশোরীর পরিবার। ওই কিশোরী ব্রাম্মনবাড়িয়া জেলার টেংগারপাড় গ্রামের বাসিন্দা। আর প্রেমিক জিয়া শেরপুর জেলার শ্রীবরদী উপজেলার কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের মধ্য খোশালপুর গ্রামের মছমত আলীর ছেলে। সে বকশীগঞ্জ পৌর শহরের চানপ্লাজার এম এম টেলিকম এন্ড কমিউনিকেট এর কর্মচারী ।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,ব্রাম্মনবাড়িয়া জেলার টেংগারপাড় গ্রামের রহিম মিয়ার কিশোরী কন্যা ফুলির (১৬) (ছদ্দনাম) সাথে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে শেরপুর জেলার শ্রীবরদী উপজেলার কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের মধ্য খোশালপুর গ্রামের মছমত আলীর ছেলে জিয়াউর রহমান ওরফে জিয়ার (২১) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। গত প্রায় চার মাস আগে জিয়া ওই মেয়েটি বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বকশীগঞ্জে নিয়ে আসে। এরপর বাসায় আটকে রেখে শারিরীক সম্পর্ক করে। মেয়েটি বিয়ের জন্য চাপ দিলে জিয়া টালবাহনা করতে থাকে। গত বৃহস্পতিবার মেয়েটি পৌর শহরের কামারপট্রি চানঁপ্লাজায় জিয়ার কাছে আসে এবং বিয়ের জন্য পুনরায় চাপ প্রয়োগ করে। তখন কৌশলে মেয়েটিকে ফেলে পালিয়ে যায় জিয়া। খবর পেয়ে কিশোরীর মা-বাবা এসে মেয়েকে উদ্ধার করে জিয়ার বাড়িতে নিয়ে যায়। এর পর থেকেই বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান করছে ওই কিশোরী ও তার পরিবার। পলাতক রয়েছে প্রেমিক।
এ ব্যাপারে এম এম টেলিকম এন্ড কমিউনিকেট এর মালিক মামুন জানান,জিয়া আমার দোকানের কর্মচারী ছিল। সে ওই মেয়েকে রেখে পালিয়েছে। এছাড়া আমার দোকানের প্রায় দেড় লাখ টাকা চুরি করে নিয়ে গেছে সে। বিষয়টি আমি মৌখিক ভাবে থানা পুলিশকে অবগত করেছি।
এ ব্যাপারে কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হামিদ উল্লাহ তালুকদার জানান,বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে বিচারের জন্য আমার কাছে কেউ আসেনি। আমার ধারনা ছেলে পলাতক থাকায় বিষয়টি সুরাহা হচ্ছেনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × one =